duare ration, mamata banerjee, supreme court's judgement for duare ration, supreme court, দুয়ারে রেশন, মমতা ব্যানার্জি, দুয়ারে রেশন প্রকল্পে শীর্ষ আদালতের রায়,
বাধা কাটিয়ে রাজ্যে চালু মুখ্যমন্ত্রী অনুমোদিত 'দুয়ারে রেশন', রায় সুপ্রিম কোর্ট এর | ছবি - সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গ ডিজিটাল ডেস্কঃ রাজ্যে দুয়ারে রেশন প্রকল্পে আর থাকল না কোনো বাধা। সম্প্রতি রাজ্য সরকারের দুয়ারে রেশন প্রকল্প বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। কলকাতা হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন রাজ্য সরকার। আজ কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে দেশের শীর্ষ আদালত স্থগিতাদেশ জারি করলেন। যার ফলে দূয়ারে রেশন প্রকল্প চালাতে এখন কোনো বাধা রইল না রাজ্যের।

২০২১ সালে ১৬ই নভেম্বর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনুমোদিত দুয়ারে রেশন প্রকল্প শুরু হয়েছিল। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, তৃণমূল যদি ফের ক্ষমতায় আসে তাহলে বাড়ি বাড়ি গিয়ে রেশন সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে। কিন্তু রেশন ডিলারের একটি সংগঠন এই প্রকল্পের বিরোধিতা করে কলকাতা হাইকোর্টে একটি মামলা করে। ওই মামলার ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ দুয়ারে রেশনকে বন্ধ করার নির্দেশ দেয়। কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়েছিল যে, এই প্রকল্পটি সম্পূর্ণরূপে বেআইনি।

কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে রেশন-ডিলাররা জানান, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুয়ারে রেশন প্রকল্প যে আইনের মাধ্যমে নিয়ে এসেছে, প্রকৃতার্থে এ ধরনের আইন নেই। একই সঙ্গে তারা জানায়, এভাবে মানুষের বাড়ি বাড়ি রেশন সামগ্রী পৌঁছে দেয়া সম্ভব নয়। এছাড়াও বাড়ি বাড়ি গিয়ে রেশন সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার জন্য অতিরিক্ত লোকবল এবং আর্থিক সাহায্যের প্রয়োজন। তবে তা সরকার পক্ষ থেকে পর্যাপ্তভাবে দেওয়া হয় না বলে দাবি রেশন ডিলারদের।

কিছুদিন আগে বিধানসভার একটি অধিবেশনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ বিষয়ে জানান, মানুষের সুবিধার্থে দুয়ারে রেশন প্রকল্পটি চালু করার কথা ভাবা হয়েছে। এই প্রকল্পটি চালু রাখার জন্য কারো সামনে মাথা নত করতে প্রস্তুত নই। প্রয়োজনে বিধানসভার মাধ্যমে কোর্টের কাছে আবেদন জানানো হবে।

রেশন ডিলারদের মামলার ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্ট তাদের পক্ষপাতিত্ব হয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনুমোদিত দুয়ারে রেশন প্রকল্পটি বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিল। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিনি। সুপ্রিমকোর্ট কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের উপর স্থগিতাদেশ দিয়েছে।