taliban, afghanistan, taliban banned higher education of women in afghanistan, তালিবান, আফগানিস্তান, আফগানিস্তানের মহিলাদের উচ্চশিক্ষা বন্ধ করে দিল তালিবান
Taliban: আফগানিস্তানের মহিলাদের উচ্চশিক্ষা থেকে বঞ্চিত করার সিদ্ধান্ত তালিবানের | ছবি - সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গ ডিজিটাল ডেস্কঃ অতীতে মহিলাদের উচ্চশিক্ষা নিয়ে জোর দেওয়া হতো না। তাদেরকে সবসময়ই এসবের থেকে দূরে রেখে দেওয়া হতো। কম বয়সেই দিয়ে দেওয়া হতো বিয়ে। কিন্তু বর্তমানে সেই নিয়মের পরিবর্তন হয়েছে। আজকের দিনে বেশিরভাগ মহিলারাই উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে নিজেদের মেরুদণ্ডকে সোজা করতে ব্যস্ত। কিন্তু আফগানিস্তানের তালিবান প্রশাসন নারীদের উচ্চশিক্ষা গ্রহণের ব্যাপারে রাস টানার সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে।

সম্প্রতি আফগানের তালিবান প্রশাসন জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের মহিলারা আর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে পারবে না। উচ্চশিক্ষা বন্ধ তাদের জন্য। আর এই খবর শুনে দুশ্চিন্তায় পড়লেন আফগানের মেয়েরা। আফগানিস্তানের উচ্চ শিক্ষা মন্ত্রক আফগানের মেয়েদের পড়াশোনা বন্ধ করার জন্য এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে এই বিষয়ে মত দেয়নি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাষ্ট্রসংঘ এবং ব্রিটেন।

আফগানিস্তানের উচ্চ শিক্ষা মন্ত্রকের এই সিদ্ধান্তকে তীব্র নিন্দা করে মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট উড বলেছেন, তালিবান কখনও আশা করতে পারে না আন্তর্জাতিক সংগঠনের সদস্য হব, অথচ আফগানদের অধিকার হরণ করব। মহিলা এবং শিশুদের মানবাধিকার এবং মৌলিক অধিকার হরণ করার পর আন্তর্জাতিক সংগঠনের সদস্য হওয়ার কথা তালিবানের মাথায় আনা উচিত নয় ।

ব্রিটেনের রাষ্ট্রদূতের দাবি, মহিলাদের অধিকার এবং স্বাধীনতা খর্ব করার আরও একটা পদক্ষেপ নিল তালিবান। প্রত্যেক ছাত্রীর জীবনের স্বপ্ন গুঁড়িয়ে দিতে চাইছে তালিবান। আত্মনির্ভর এবং সমৃদ্ধ আফগানিস্তান তৈরির পথে আরও একটা বাধা সৃষ্টি করল তালিবান।

নিউইয়র্কে যখন রাষ্ট্রসংঘ নিরাপত্তা বিষয়ক বৈঠকে ব্যস্ত, ঠিক সেই সময়ে আফগানের তালিবান প্রশাসন এই ঘোষণা করেছেন। এমনকি উচ্চশিক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র চিঠি দিয়ে পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, আফগানিস্তানে সরকারি এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পঠন-পাঠন বন্ধ করা হলো মহিলাদের। দুশ্চিন্তায় সেখানকার মহিলারা। অনেকে মনে করছেন, মহিলাদের স্বাধীনতা পুরোপুরিভাবে কেড়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যেই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সেখানকার মহিলাদের শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত করে অন্ধকারে নিমজ্জিত করার উপায় খুঁজছে তালিবান।