Pradhan Mantri Gramin Awas Yojana, west bengal, প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনা, পশ্চিমবঙ্গ
বাড়ল প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনার অনুমোদনের সময়সীমা! গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের চিঠি নবান্নে

পশ্চিমবঙ্গ ডিজিটাল ডেস্কঃ বাড়ল প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনার অনুমোদনের সময়সীমা। এই সময়সীমা বেড়ে ৩১শে জানুয়ারি পর্যন্ত করা হয়েছে। এই মর্মে গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রক থেকেও চিঠি এসে পৌঁছেছে নবান্নে।

প্রথমে অনুমোদন দেওয়ার সময়ের শেষসীমা ছিল গত বছরের ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যেই রাজ্যের জন্য বরাদ্দ মোট ১১ লক্ষ ৩৬ হাজার ৪৮৮ টি বাড়িকেই অনুমোদন দিয়ে দিতে হতো। নচেৎ অনুমোদন দিতে বাকি থাকা কোঠার বাকি বাড়ি অন্য রাজ্যকে দিয়ে দেওয়া হবে।

কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় যুদ্ধকালীন তত্‍পরতায় কাজ করেও ১০ লক্ষ ৫০ হাজার বাড়িকে অনুমোদন দেওয়া সম্ভব হয়েছে। এমন নির্দেশ দিয়ে কেন্দ্রের তরফে নবান্নকে চিঠি পাঠানো হয় গত মাসের ২৪ তারিখে। তবে নতুন নির্দেশিকার পর অনুমোদন দিতে বাকি থাকা ৮৬ হাজার ৪৮৮ টি বাড়িকে অনুমোদন দিতে আর কোনো বাধা থাকলো না।

নতুন বাড়ির অনুমোদন দেওয়া হলেও বাংলাকে এখন অব্দি নতুন আবাস যোজনার জন্য বরাদ্দ অর্থ দেওয়া হয়নি। কেন্দ্রের গ্রাম উন্নয়ন মন্ত্রক থেকে বলা হয়েছে, পুরনো বাড়ির জন্য খরচ হওয়া অর্থের হিসাব না দেওয়া অব্দি নতুন করে কোনো টাকা দেওয়া হবে না ফলে অনুমোদন মিললেও থমকে রয়েছে বাড়ি তৈরির কাজ।

বরং রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের নালিশের ফলে বারবার কেন্দ্রীয় দল বাংলায় আসছে কাজের তদারকি করতে। যদিও এখন অব্দি তেমন কোন বড় ঘটনার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে কেন্দ্রীয় আবাস যোজনার প্রায় ২ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকার কোনো হিসাব নেই বলে কেন্দ্রীয় সংস্থা কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অফ ইন্ডিয়া (ক্যাগ)-এর রিপোর্টকে হাতিয়ার করে ২০২১ সালে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে হাইকোর্টে রাজ্যের বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা করেন রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার সেই মামলায় ক্যাগ এবং রাজ্যের অর্থ সচিবকে যুক্ত করতে বলা হয়েছে কলকাতা হাই কোর্টের পক্ষ থেকে। আগামী ৩০শে জানুয়ারি এই মামলার পরবর্তী শুনানি করবেন প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।