imran khan, pakistan corona, corona news, পাকিস্তান, ইমরান খান, করোনা,
ছবিঃ ফেসবুক

পশ্চিমবঙ্গ ডেস্কঃ ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে পারস্পরিক দ্বন্দ্ব এটা নতুন কিছু নয়। পড়শী দেশ হলেও একটা না একটা দ্বন্দ্ব লেগেই থাকে পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের। কিন্তু এবার বিপদের সময় দ্বন্দ্ব ভুলে এগিয়ে এলেন পাকিস্তানের আমজনতা।

এমন কঠোর পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে দাঁড়ানোর জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে অর্জি জানাচ্ছে পাকিস্তানের আমজনতা। সম্প্রতি এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড করেছে পাকিস্তানের মানুষ। পাকিস্তানের টুইটার ব্যবহারকারীরা এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন করিয়েছে#IndiaNeedsOxygen.

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের রাশ টানতে নাজেহাল হয়ে পড়েছে ভারত। ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে অক্সিজেন সংকটের কারণে অধিক করোনা রোগীর মৃত্যু ঘটেছে। রাজধানী দিল্লি শহরেও অক্সিজেনের আকাল দেখা গিয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় অক্সিজেনের অভাবে অসংখ্য মৃত্যুর ঘটনার খবর উঠে এসেছে দিল্লি থেকে।

এই কঠিন সময়ে ভারতের সাথে দ্বন্দ্ব ভুলে পাকিস্তানের সাধারণ মানুষের আরজি প্রমাণ করে দিল “ভালোবাসা সদা বিদ্যমান।” পাকিস্তানের টুইট ব্যবহারকারীরা #IndiaNeedsOxygen ট্রেন্ড করিয়ে বিভিন্ন ধরনের টুইট করতে থাকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে উদ্দেশ্য করে।

পাকিস্তানের এক টুইটার ব্যবহারকারী পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন, ‘আমি আমাদের সরকারকে আবেদন করছি, যাতে ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়। বিপদের মধ্যে রয়েছে সেখানকার মানুষ। রাজনীতি ভুলে এগিয়ে আসুক আমাদের সরকার।”

একজন পাকিস্তানী টুইট করে লিখেছেন, “হে আল্লাহ ভারতের লোকেদের প্রতি একটু করুণা প্রদর্শন করুন। আমাদের প্রার্থনা এবং আমাদের সহানুভূতি সব সময় আপনার সঙ্গে আছে। আমরা প্রতিবেশী তোমাদের শত্রু নই।” আর একজন লিখেছে, “এই কঠিনতম সময়ে সবচেয়ে বড় প্রয়োজন সময়-এর। ভারতকে নিয়ে চিন্তাভাবনা ছাড়ুন এবং ভারতকে সাপোর্ট করুন।”

পাকিস্তানের বাসিন্দারা চায় এই কঠিনতম পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে থাকুক পাকিস্তান। এমন পরিস্থিতিতে টুইট করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি জানিয়েছেন, “করোনার বিপদজনক ঢেউ এর বিরুদ্ধে ভারতের বাসিন্দারা যে লড়াই চালাচ্ছেন আমরা তার পাশে আছি। আমরা প্রতিবেশী এবং গোটা বিশ্বে যারা করোনার ফলে প্রবাহিত, আমরা তাদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। মানবতাকে একতা করে এই অতিমারি করোনার বিরুদ্ধে আমরা রুখে দাঁড়াবো, এই কামনা করি।”